একটি অফিস ইন্টেরিয়র ডেকোরেশন এর খরচ কেমন?

নতুন অফিস নিয়েছেন? ভাবছেন সুন্দর করে ইন্টেরিয়র ডেকোরেশন টা করবেন? কিন্তু একটা অফিসের ইন্টেরিয়র ডেকোরেশন করতে গেলে কেমন খরচ পড়বে তা সঠিকভাবে নির্ধারন করতে পারছেন না, হয়ত আপনার অন্যান্য কাজের চাপে এদিকে সময় দিতে পারছেন না।

আসলে একটি অফিসের ইন্টেরিয়র ডেকোরশেন এর খরচ অনেক কিছুর উপর নির্ভর করে করে, যা এই সিম্পল প্রশ্নটিকে অনেক সময় কঠিন করে দেয়। যদিও অফিস ইন্টেরিয়রের খরচের ব্যাপারে কোন নির্দিষ্ট উত্তর নেই তবে কিছু বিষয় বিবেচনা করে খরচের একটা ধারনা নির্ধারন করা যেতে পারে। এইসব কিছুই নির্ভর করবে অফিসের সাইজ, লোকেশন এবং চাহিদা অনুযায়ী।

যাইহোক এটি একটি মৌলিক প্রশ্ন যা আপনার বিবেচনায় আসবে, সেক্ষেত্রে প্রথমে আপনি কত খরচ করতে চাচ্ছেন বা আপনার বাজেট কেমন রাখবেন সেটা নির্ধারন করে ফেলুন। এরপরে আরও কিছু প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা করুন, যেমন:

সৌন্দর্য বর্ধন নাকি স্ট্রাকচারাল চেঞ্জ?

আপনি যখন নতুন অফিস সেটাপের কথা চিন্তা করছেন তখন আগেই সিদ্ধান্ত নিন, যে আপনি কি চান সৌন্দর্য বর্ধন (যেমন: নতুন ফ্লোর, সিলিং, ওয়াল পেইন্ট/স্টিকার) নাকি স্ট্রাকচারাল চেঞ্জ (যেমন: নতুন ওয়াল, নতুন দরজা সেটাপ)। আর এটা যদি পরে বিবেচনা করতে যান, তাহলে আপনার প্রযেক্ট টি শেষ করা কঠিন হয়ে পড়বে এবং সেটাপের খরচ দিগুন হারে বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

কত সময় নিতে পারবেন?

আপনার প্রযেক্ট টাইমলাইন কত? এটি একটি গুরুত্বপূর্ন বিষয় কারন টাইমলাইন আপনার খরচের আকৃতি নিয়ন্ত্রন করে। সাধারনত কম টাইমলাইনের কাজে বেশি সময় (ঘন্টা) এবং ছুটির দিনেও কাজ চালিয়ে যাওয়া দরকার হয়। একটি আদর্শ ২,৪০০ স্কয়ার ফিট অফিস ডেকরেশনের টাইমলাইন ৪ থেকে ৫ সপ্তাহ নির্ধারন করা হয়। এর চেয়ে কম টাইমলাইন হলে খরচের খাতও বেড়ে যায়।

কত স্কয়ার ফিট সাইজের অফিস আপনার প্রয়োজন?

এই প্রশ্নের উত্তর সাধারনত খুব সহজেই আমরা বলতে পারি – “আমার এখন যা স্পেস সাইজ আছে তাই ই দরকার” এবং এটি অনেক সময় একেবারে সঠিক সিদ্ধান্ত হিসেবেও বিবেচিত হয়। কিন্তু কখনও কখনও এটি প্রশ্নটি অনেক জটিল হয়ে পড়ে, কারন এটি নির্ভর করে আপনার আকাঙ্খার উপর, বর্তমান স্পেস সাইজ এবং অবশ্যই আপনার ব্যাবসার সাইজ এর উপর।

আপনার ব্যবসার সাইজ কেমন আছে, আগামি এক বছর পরে কেমন হবে, কোন কোন ডিপার্টমেন্টে নতুন লোক নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তারা কে কোথায় বসবে এই প্রশ্নের উত্তর আপনাকে খুঁজতে হবে। তবেই আপনি সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন আপনার কত স্কায়ার ফিট সাইজের অফিস প্রয়োজন। 

ট্রেডিশনাল নাকি ডিজাইন এবং ডেকোরেশন?

আপনার অফিস যদি ট্রেডিশনাল পদ্ধতিতে সংস্কার করতে চান তাহলে এখানে কয়েক ধাপে লোক দরকার হবে, যেমন: ইন্টেরিয়র ডিজাইনার, ওয়ার্কস্পেস প্ল্যানার এবং ফর্নিচার সাপ্লাইয়ার। আপনি যদি শুধুমাত্র স্ট্রাকচারাল চেঞ্জ করতে চান সেক্ষেত্রে দরকার হবে, সার্ভেয়র (যিনি পরিমাপ করেন), স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ার এবং ইন্টেরিয়র আর্কিটেক্ট। এরপরে দরকার হবে একজন প্রযেক্ট ম্যানেজার যিনি সকল পার্টিদের সমন্নয় সাধনের মাধ্যমে পুরো কাজ সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হওয়া নিশ্চিৎ করবেন।

আপনি যদি ডিজাইন এবং ডেকোরেশন, এই পদ্ধতিতে যান তাহলে প্রথমেই আপনার স্পেস এর কাজের স্কোপগুলো নির্ধারন করতে হবে। এখানে অবশ্যই কোয়ালিটির ব্যাপারে সচেতনতা জরুরি এবং এতে আপনার খরচ ট্রেডিশনাল পদ্ধতির তুলনায় বেশি হবে। ডিজাইন এবং ডেকোরেশন প্যাকেজ এর মধ্যে থাকে: থ্রিডি এবং টুডি ডিজাইন, বিস্তর বিবরনী, কন্সাল্টেন্সি, প্রযেক্ট ম্যানেজমেন্ট এবং কন্সট্রাকশন সার্ভিস এই সবই এক ছাদের নিচে।

এই পদ্ধতিটি আমাদের দেশে ক্রমান্বয়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বেশিরভাগ কোম্পানী এখন ট্রেডিশনাল পদ্ধতি থেকে বের হয়ে আসছে, কারন ডিজাইন এবং ডেকোরেশন পদ্ধতিতে খরচ কিছুটা বেশি হলেও কোম্পানীর ব্র্যান্ড ভ্যালু, কর্মীদের চাহিদা পুরন, কর্মক্ষেত্রে সৃজনশীলতা বৃদ্ধি, কাজে আনন্দ, ইত্যাদি গুরুত্বপুর্ন বিষয়গুলো যোগ হয়েছে। যা কোম্পানীর ভবিষ্যৎ মুনাফা বৃদ্ধির ব্যাপারটা নিশ্চিৎ করে।

ফার্নিচার রিকয়ারমেন্ট কেমন?

যদি আপনি একটি মিটিং রুম সেটাপ দিতে চান বা একটি সমগ্র সেলস ফ্লোর সেটাপ দিতে চান, আপনাকে সঠিক ফার্নিচার নির্বচন করতে হবে। এটি কর্মীদের  নিরাপদ কাজের পরিবেশ নিশ্চিৎ করে। সাম্প্রতিক গবেষনায় দেখা গেছে অফিস কর্মীদের ব্যাবহারের জন্য বিভিন্ন ধরনের ফার্নিচার দরকার হয়, যেমন: সিটিং/স্ট্যান্ডিং ডেস্কিং, স্টোরেজ সিস্টেম, ল্যাপটপ স্ট্যান্ড এবং অন্ন্যান্য। ভাল মানের ফার্নিচার সাপ্লাইয়ার বা আপনার চাহিদা অনুযায়ী ডিজাইন ফার্নিচার এবং কাস্টম ফার্নিচার এর ব্যাপারে ইন্টেরিয়র ডিজাইনার এর পরামর্শ নেয়া ভাল। তিনি আপনাকে ধারনা দিনে পারবেন কি পরিমান ফার্নিচার প্রয়োজন এবং কেমন খরচ হবে।

টেকনোলজী সিস্টেম কি হবে?

এখনকার ট্রেন্ডে তাল মিলিয়ে চলতে এবং অভ্যন্তরীন যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করতে নতুন টেকনোলজীর কোন বিকল্প নেই। আপনাকে আগেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে কি কি ধরনের টেকনোলজী ব্যাবহৃত হবে।

অফিস ইন্টেরিয়র ডেকোরেশন খরচ ২০১৮?

এখনকার সময়ে একটি ২,৪০০ স্কয়ার ফিট অফিস ইন্টেরিয়র ডেকোরেশনে স্ট্যান্ডার্ড খরচ পড়ে ৭ থেকে ৯ লাখ টাকা। এর মধ্যে যে সকল সেটাপগুলো থাকবে:

০১. ডিজাইন (২ডি এবং থ্রিডি) এবং প্রযেক্ট সুপারভিশন

০২. ফ্লোরিং (কার্পেট)

০৩. লাইটিং এবং সিলিং

০৪. ওয়ার্কস্টেশন (১২ জন)

০৫. এক্সিকিউটিভ রুম (২টি)

০৬. রিসিপশন ফার্নিচার

০৭. ওয়াল পেইন্ট

০৮. ব্র্যান্ডিং (এলইডি সাইন)

সর্বোপরী, এটি একটি স্ট্যান্ডার্ড প্রযেক্ট এর খরচের ধারনা মাত্র। প্রিতিটি রুম বাই রুম সাইজ এবং চাহিদা অনুযায়ী এই টাকার অংক উঠানামা করে।

তথ্যসুত্র: Oktra

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *